মাগী মা

আমার নাম নাদিয়া। গুলশানে থাকি আমরা। গুলশানের অনেক গুলো মর্ডান ফ্যামিলির মদ্ধে আমরা আছি। আজকে বলবো আমার মায়ের একটা কাহিনী। মম এর নাম সাদিয়া।

গত বছরের কথা। আব্বু প্রায়ই বাসায় পারটি দিতো। অনেক মানুষ আসতো রাতে বাসায়। বলে রাখি মম কখনোই বাসায় সালোয়ার কামিজ পরে না। শাড়ি খুব কম পরে। বেশিরভাগ সময় গেঞ্জি, জিন্স অথবা হাফ প্যান্ট পরে। তো অইদিন বাসায় বিকালের দিকে পার্টির কাজ করছিল সবাই। আব্বু কি জেন কিনতে বাইরে গিয়েছিলো। এই সময় বেল বাজলো।
আমিই দরজা খুললাম। খুলে দেখি মাসুদ আঙ্কেল। আব্বুর বিজনেস পার্টনার। উনি আগেই চলে এসেছেন। আমি উনাকে ড্রইংরুমে বসিয়ে চলে গেলাম। আমার রুম দোতালায়। রুমের দরজায় দাঁড়ালে ড্রইংরুম দেখা যায়। রান্নাঘর ও নিচতলায়। আমি আমার রুমে ঢুকে গেলাম। আমি একটা টাইট টপ আর জিন্স পরা ছিলাম। টের পেলাম উনি আমার অঙ্গগুলা কিভাবে জেন দেখলো।
আমার রুমেই ছিলাম আমি। হটাত ড্রইংরুমে শব্দ শুনে দরজায় দাড়ালাম। দেখি মম কি জেন নিতে ড্রইংরুমে ঢুকলো। আমি ভয় পেয়ে গেলাম কারণ আমি মম ক বলে আসিনি যে আঙ্কেল এসেছে বাসায়। দেখলাম হাফ প্যান্ট আর গেঞ্জি পরে মম ঢুকলো রুমে............

মাসুদ আঙ্কেল দেখলাম মম কে দেখেই কেমন জেন করে উঠলো। মম ও হঠাত করে আঙ্কেল কে দেখে থতমত খেয়ে গেল। এখানে মম এর কথা বলি। আব্বু আর মম দুজনি অনেক সেক্স পছন্দ করে। মম সবসময় ই আব্বুর কথাই পর্নস্টারদের দেখে নিজের ফিগার মেইন্টেইনের চেষ্টা করতো। পেরেছেও মম। মম এর দুধ একেবারে পর্নস্টারদের মত।ঝুলে পড়া টাইপ না। পাছাটাও অনেক বড়। আর মম ইচ্ছা করেই হাটার সময় পাছা দুলায়। তো, মাসুদ আঙ্কেল ই প্রথমে সামলে নিল।

-আরে, সাদিয়া। কি খবর।

-মাসুদ ভাই আপনি, কখন এলেন। আমাকে কেউ বলে নি।

-না বলে ভালই করেছে, এই যে একটু আগেই আসলাম।

-ও। আপনার বন্ধু তো বাসায় নেই। বাইরে গেছে।
-কিছু হবে না। তুমি তো আছো। আসো গল্প করি।

আমি উপর থেকে দেখলাম লালসার চোখ দিয়ে মাসুদ আঙ্কেল দেখছে মম কে। মম মাসুদ আঙ্কেল এর পাশের সোফায় বসলো।

তারপর সাদিয়া। কি করছিলে?

-রান্না বান্না। আর কি।। রাতের জন্যে।

-ও। আমি আরো তোমাকে দেখে ভাবলাম কি না কি করছিলে।

-কি যে বলেন না মাসুদ ভাই। বলে লাজুক কামাতুর হাসি দিলো সাদিয়া।

-আরে তোমাকে দেখলে যে কেউ ই তাই বলবে। জেভাবে আছো।
-কিছু মা বলে হাশলো মম।

-মম আর আমি দুজনি খেয়াল করলাম প্যান্টের নুনুর দিকটা উচু হয়ে যাচ্ছে মাসুদ আঙ্কেল এর।
-সাদিয়া মজা পেল দেখে। বললো, কি মাসুদ ভাই। বন্ধুর বউকে দেখেই?

- মাসুদ ও লজ্জা না পেয়ে সরাসরি সাদিয়ার বুকের দিকে তাকিয়ে বললো, বউ যদি মাগি হয় তো দেখতেই হয়।

সাদিয়ার মনে তখন উত্তেজনা। ব্রা না পরায় ্নিপল গুলো বাইরে থেকে দেখা যাওয়া শুরু হল। মাসুদ আঙ্কেলের তা চোখে পড়লো সঙ্গে সঙ্গেই।
হঠাত দেখলাম মাসুদ আঙ্কেল উঠলো সোফা থেকে। আমাদের দেয়ালের একটা ছবির কাছে যেয়ে বললো, আরে সাদিয়া এটা কি?

মম উঠে গেল। ছবিটা ছিল একটা ভেজা শাড়ির মহিলা পুকুর থেকে উঠছে। মম ছবির দিকে তাকিয়ে ছিল। আঙ্কেল দেখলাম মম এর পিছনে চলে গেল। আঙ্কেল আবার জিজ্ঞেস করলো সাদিয়া এটা কি?

আমি উপর থেকে দেখলাম আঙ্কেল মম এর হাফ প্যান্টের উপর দিয়ে পাছায় হাত বুলাচ্ছে। মম ও দেখলাম মাগির মত চেহারা করে বললো, আপনি জানেন না এটা কি?

-না, জানি না তো। এটা কি? বলে ঠাসসস করে একটা চড় মারলো আঙ্কেল সাদিয়ার পাছায়... সাদিয়া আআআহহহ করে উঠলো।
-মাসুদ বললো, হবে নাকি আমার জন্যে একটু মাগি সাদিয়া?

-উপরে নাদিয়া আছে মাসুদ ভাই...আহহহ...।। আবারো পাছায় মারলো আঙ্কেল।
কিছু হবে না। ও ও তো মাগি। দেখে আরো মজা পাবে। আসো দেখি। বলে মম কে ঘুরালো আঙ্কেল। গেঞ্জির উপর দিয়েই দুধ দুটা চেপে ধরলো। আহহহহ বলে মাগির মত গলা টা বাড়িয়ে দিল মম। গলার কাছ দিয়ে হাত ভিতরে ঢুকিয়ে আঙ্কেল বাম দুধ টা খামচে ধরলো। মম আহহ আহহ করছিলো। আঙ্কেল হাত বারিয়ে মম এর হাফ প্যান্টের বোতাম খুলে চেন টা নামিয়ে দিলো।

দুইটা দুধ খামচে ধরে জিজ্ঞেস করলো, বল মাগি। আগে কোনটা খাবো।। দুধ না পাছা?

-সাদিয়া চিৎকার দিয়ে বললো পাছাআআআআআ...।

মাসুদ আঙ্কেল আবার মম কে ঘুরিয়ে নিচে বসলো। মম এর হাফ পেন্ট টা নামিয়ে দিল পাছার উপর থেকে। তারপর ঠাআশশশশশশশশ ঠাআআআশশশশশশশশ করে দুই পাছায় দুইটা চড় দিলো। আমি নিজেও তখন আমার হাত জিন্সের নিচে ঢুকিয়েছি। এমন সময় বেল বাজলো।

সাদিয়া পাছাটা ইচ্ছা করে বাকিয়ে মাসুদের মুখে ঘসে উঠে দারিয়ে তারাতারি প্যান্ট টা পড়ে ফেললো। এরপর রান্নাঘরে জোরে হেটে পাছা দুলিয়ে চলে গেল। আঙ্কেল ই দরজা খুললো, দেখলাম আব্বু এসেছে।

আব্বু আঙ্কেল কে জিজ্ঞাসা করলো, কি রে ।একা বসে আছিস বুঝি? কেউ সঙ্গ দিতে আসে নি?

না রে। ভালই লাগছিলো না একা বসে থেকে, তুই এসে বাচালি। বিরক্ত গলায় বললো আঙ্কেল। সেদিনই আমি বুঝলাম আমার মম সাদিয়া একটা মাগি।
মাগী মা মাগী মা Reviewed by তাসনুভা খান প্রিয়া on December 06, 2012 Rating: 5

No comments:

Powered by Blogger.